জেলার খবর

নারীদেরকে খেলাধুলায় আগ্রহী করতে খুলনা ক্রীড়া সংস্থার উদ্যোগ

নারীদেরকে খেলাধুলায় আগ্রহী করতে খুলনা ক্রীড়া সংস্থার উদ্যোগ নারীদের খেলাধুলায় অংশগ্রহনের জন্য ২৬ কোটি টাকা ব্যয়ে গড়ে তোলা হয় খুলনা মহিলা ক্রীড়া কমপ্লেক্স।তবে এটি নির্মানের পর থেকেই দেখা যায় নানা রকম ক্রটি। এখন পর্যন্ত তা ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে আছে।রক্ষনাবেক্ষনের অভাবে কমপ্লেক্সের অবকাঠামো ও যন্ত্রপাতি নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ২০১২ সালে খুলনা মহিলা ক্রীড়া কমপ্লেক্সের উন্নয়নে ২৬ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। এর মধ্যে সুইমিং পুল, জিমনেশিয়াম নির্মাণ ও মাঠ সংস্কারের কাজ ছিল। ২০১৩ সালের মধ্যে কাজ শেষ করার কথা থাকলেও শেষ হয় ২০১৪ সালের মাঝামাঝিতে। এরপর নানা ত্রুটির কারণে গত চার বছর সুইমিং পুল কিংবা জিমনেশিয়াম ব্যবহার করতে পারেননি ক্রীড়াবিদরা। সুইমিং পুল নির্মাণের পর প্রথমবার পানি উত্তোলনের সময়ই নষ্ট হয়ে যায় বিদ্যুৎ সাবস্টেশন।

১ হাজার ৮৯৪ বর্গমিটার আয়তনের সুইমিং পুলটি আট লেনবিশিষ্ট। পুলটির দৈর্ঘ্য ৫০ মিটার ও প্রস্থ ২২ মিটার। রয়েছে গ্যালারি ও ড্রেসিংরুম। কিন্তু আন্তর্জাতিক মানের পুল নির্মাণের বাজেট থাকলেও সেখানে পানি ফিল্টার প্লান্ট রাখা হয়নি। ফলে কিছুদিন পরপর সম্পূর্ণ পুল সেচে খালি করে নতুন পানি ভরতে হয়। সূত্র জানায়, কয়েক দফা অভিযোগের পর গত বছরের আগস্টে মহিলা ক্রীড়া কমপ্লেক্স পরিদর্শনে যান খুলনা বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া। কমপ্লেক্সের সার্বিক অবস্থা দেখে ক্ষুব্ধ হন তিনি এবং সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলীকে দ্রুততম সময়ের মধ্যে সুইমিং পুলসহ অন্যান্য অবকাঠামো সংস্কারের নির্দেশ দেন।

পরে জানা যায় যে প্রকৌশলীর নির্দশে তা কোন রকম ঠিক করা হয়েছে। খুলনা জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক কাজী শামীম আহসান বলেন, আমরা বিভিন্ন দপ্তরে এটির সংস্কারের জন্য চিঠি দিয়েছি। মৌখিকভাবেও বারবার অনুরোধ করা হয়েছে। কিন্তু কোনো কিছুতেই কাজ হয়নি। এত বড় সরকারি অবকাঠামো ব্যবহার করতে না পারলে সেটি আমাদের জন্য হতাশাজনক।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close